WB Class VI Chapter 2 Question Answer: ভারতীয় উপমহাদেশে আদিম মানুষ

WB Class VI Chapter 2 Question Answer: ভারতীয় উপমহাদেশে আদিম মানুষ: এখানে পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের ষষ্ঠ শ্রেণির অতীত ও ঐতিহ্য নামক ইতিহাস বই থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর দেওয়া হল আশাকরি এগুলি পরীক্ষার প্রস্তুতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের ভীষন কাজে লাগবে। বিশেষ করে ইউনিট পরীক্ষা অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষা ও বার্ষিক পরীক্ষার জন্য ভীষণ উপকারী এই প্রশ্ন উত্তর গুলি। অতএব দেরি না করে এই প্রশ্ন উত্তর গুলি খাতায় তুলে নাও এবং মুখস্থ করা শুরু করে দাও। আমরা অধ্যায়ভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর প্রকাশ করার চেষ্টা করব। তোমাদের রেজাল্ট ভাল হলে আমাদের পরিশ্রম সার্থক বলে মনে হবে।

দ্বিতীয় অধ্যায় ভারতীয়ঃ  উপমহাদেশে আদিম মানুষঃ

 

১। সঠিক শব্দটি বেছে নিয়ে শূন্যস্থান পূরণ করোঃ 

উত্তরঃ

১.১) আদিম মানুষ প্রথমে- ( রান্না করা খাবার / পোড়া মাংস/  কাঁচা মাংস ও ফলমূল ) খেত।

উত্তরঃ কাঁচা মাংস ও ফলমূল

১.২) আদিম মানুষের  প্রথম হাতিয়ার ছিল- (ভোঁতা পাথর/ হালকা ছুঁচালো পাথর/ পাথরের কুঠার)।

উত্তরঃ ভোঁতা পাথর

১.৩) আদিম মানুষের জীবনে প্রথম জরুরী আবিষ্কার- (ধাতু/চাকা/আগুন) ।

উত্তরঃ আগুন

২। ক স্তম্ভের সঙ্গে খ স্তম্ভ মিলিয়ে লেখঃ 

উত্তরঃ

কৃষিকাজ- নতুন পাথরের যুগ

পশুপালন- মাঝের পাথরের যুগ

ভীমবেটকা – মধ্যপ্রদেশ

হুন্সগি-  কর্ণাটক

 

৩। নিজের ভাষায় ভেবে লেখো ( তিন / চার লাইন ) :

৩.১। আদিম মানুষ যাযাবর ছিল কেন ?

উঃ – আদিম মানুষ প্রথমে খাবার উৎপাদন করতে পারত না। পশুপালনও তাদের জানা ছিল না । শিকার করা পশু দের কাঁচা মাংস ও বিভিন্ন গাছের ফলমূল খেয়ে পেট ভরাতো।  ফলে নানান জায়গায় ঘুরে ঘুরে দিন কাটাতে হতো তাদের।  এই কারণেই আদিম মানুষ যাযাবর ছিল।

৩.২। আগুন জ্বালাতে শেখার পর আদিম মানুষের কী কী সুবিধা হয়েছিল ?

উঃ – আগুন জ্বালাতে শেখার ফলে আদিম মানুষের নিম্নলিখিত সুবিধা হল –

  • আদিম মানুষ কাঁচা মাংসে মাংসের পরিবর্তে আগুনে পুড়িয়ে খেতে শেখে।
  • তীব্র শীতের হাত থেকে রক্ষা পেল।
  •  বন্য জন্তুর আক্রমনের ভয় দূর হয়।
  • গুহার মধ্যে আলো জ্বালার ফলে রাত্রে তারা বসে বসে শিল্প কর্ম শুরু করে।
  • মানুষের সামনের দাঁত ছোটো হয়ে আসে ফলে চেহারার পরিবর্তন হয় এবং শরীরে জোর বাড়ে ও বুদ্ধির বিকাশ হয়।

 

৩.৩। আদিম মানুষ কেন জোট বেঁধেছিল ? এর ফলে কি লাভ হয়েছিল ?

উঃ – পুরোনো পাথরের যুগ আদিম মানুষ ছিল যাযাবর এবং  অসহায়।  শিকারে বের হয়ে  বন্য পশুদের আক্রমনে প্রায়ই তারা মারা যেত। তাই তারা জোট বাঁধল। এর ফলে শিকারে সুবিধা হল , জোট বেঁধে শিকার করলে বড়ো প্রাণী শিকার করতে পারত। অনেক মাংস পাওয়া যেত। বিপদে পড়লে তার মোকাবিলা করতে পারত।

 

৩.৪। নতুন পাথরের যুগ কোন কোন দিক থেকে নতুন ছিল ?

উঃ – আদিম মানুষের ইতিহাসে নতুন পাথরের যুগ অনেক দিক থেকে নতুন ছিল। এই সময় নানা পরিবর্তন এসেছিল। পাথরের হাতিয়ার বানানোর কৌশল অনেক উন্নত হয়েছিল। নানান রকম পাথরের হাতিয়ার তৈরী শুরু হল। মানুষ কৃষিকাজ শিখল , নিজেদের খাদ্য নিজেরাই উৎপাদন করতে শিখল। পাশাপাশি ছোটো পাথরের হাতিয়ারও ব্যবহার করা হত। মানুষ পাথরের যুগে শিকার করে বা পশু চরণে ছেলেরা দোল বেঁধে যেত। মেয়েরা বাচ্চাদের দেখাশুনা করত। চাষাবাদ আবিষ্কার হলে মানুষ স্থায়ী বসতির দিকে এগোতে থাকে।

এছাড়া দেখে নাওঃ

ষষ্ঠ শ্রেণী পরিবেশ ও বিজ্ঞানঃ পরিবেশ ও জীবজগতের পারস্পরিক নির্ভরতা প্রশ্ন ও উত্তর

ষষ্ঠ শ্রেণীর ভূগোল প্রশ্ন- উত্তর। দ্বিতীয় অধ্যায়ঃ পৃথিবী কি গোল ।

ষষ্ঠ শ্রেণির ভূগোল তৃতীয় অধ্যায় প্রশ্ন ও উত্তর

ষষ্ঠ শ্রেণির ভূগোল প্রশ্ন উত্তর আকাশ ভরা সূর্য তারা

 

Leave a comment