Student Credit Card West Bengal Apply Online 2021

Student Credit Card West Bengal Apply Online 2021: Chief Minister Mamata Banerjee had said before the polls that her government would actually provide a student credit card of Rs 10 lakh for the benefit of students. Addressing a press conference from Nabanna, Chief Minister Mamata informed that the project Student Credit Card has been approved by the Cabinet. The benefits of this scheme will be available to students starting from Class X.

Student Credit Card West Bengal Apply Online 2021

Student Credit Card West Bengal Details | Apply Online 2021:

The West Bengal government will give a loan (Student Credit Loan) of Rs 10 lakh to the students from now on for their studies. And the guarantor of this loan will be the government itself.

Students can avail loan of Rs 10 lakh through this Student Credit Card Scheme. The validity of the card will be up to 40 years. The loan is being given by the state government to students for higher education. There will be 15 years to repay this money.

How to apply West Bengal Student Credit Card will be known from the 30th of next month whether the application has to be made online or offline. In addition, how to contact or what documents will be required will be known only when the project is launched on the 30th.

Student Credit Card West Bengal Apply Online 2021:

West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee had promised students a Student Credit Card of Rs 10 lakh for higher education ahead of the polls. The student credit card was recently approved by the state cabinet and the project is being launched on June 30. Under this scheme, students will get loan up to Rs 10 lakh for higher education at very low-interest rates.

Student Credit Card West Bengal Interest Rate:

Students will get loan up to Rs 10 lakh on an application basis. 15 years will be available to repay that loan. Interest has to be paid only 4% for repayment. If a student or his parent repays this loan while studying, he will get another 1 percent discount. That is, he has to pay only 3% interest.

Student Credit Card West Bengal Eligibility or Criteria:

Applications for this loan can be made from class X onwards. No security should be given to the student or his guardian while applying for a loan. The state government will bear full responsibility for this loan.

How to Apply for  Student Credit Card West Bengal?

The student or his guardian must first apply to the school headmaster or the nodal officer of the institute to get the student credit card loan. The application will then go to the higher education department after verification. It will reach the bank after checking from there. Later, after getting approval from the bank, the student will be paid for his studies. The process may be online.

Student Credit Card West Bengal in Bengali:

পশ্চিমবঙ্গের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য 10 লক্ষ টাকার জন্য ”স্টুডেন্ট  ক্রেডিট কার্ড”  নামে একটি প্রকল্প অনুমোদন করলেন। ভোটের পূর্বেই এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নের এক সাংবাদিক বৈঠকে এই প্রতিশ্রুতি রাখলেন তিনি। আগামী 30 শে জুন থেকে এই ক্রেডিট কার্ড আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। এই কার্ডের জন্য অনলাইনে আবেদন করা যাবে।

এই দশ লক্ষ টাকার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড দিয়ে পশ্চিমবঙ্গের ছাত্রছাত্রীরা যারা বাইরে পড়াশোনা করতে চান তাদের পড়াশোনার খরচ বহন করতে পারবে। দশম শ্রেণী থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত এই ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা পাবে। পাওয়ার ক্ষেত্রে বয়সের উর্ধ্বসীমা 40 বছর বয়স পর্যন্ত। ঋণ নিতে বাবা-মায়েদের আর চিন্তা করতে হবে না। ঘর-বাড়ি বিক্রি করতে হবে না। সরকার এই ঋণের গ্যারান্টার হবে।

ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে বয়সের উর্ধ্বসীমা ৪০ বছর। রাজ্যের বাসিন্দা, বা ১০ বছর বাস করেছেন এমন পড়ুয়ারাই এই ঋণ পেতে পারেন। এই ঋণের মেয়াদ থাকবে ১৫ বছর। অর্থাৎ এই সময়ের মধ্যে ঋণ শোধ করতে হবে।

টাকা শোধ করার ক্ষেত্রে সুদ দিতে হবে মাত্র ৪%। কোন পড়ুয়া অথবা তার অভিভাবক পড়া চলাকালীন যদি এই লোন শোধ করে থাকেন সেক্ষেত্রে তিনি আরও ১ শতাংশ ছাড় পাবেন। অর্থাৎ সেক্ষেত্রে তাকে সুদ দিতে হবে মাত্র ৩%।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের লোন নেওয়ার জন্য পড়ুয়া অথবা তার অভিভাবককে প্রথমে আবেদন করতে হবে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে অথবা ইনস্টিটিউটের নোডাল অফিসারকে। তারপর সেই আবেদন যাচাই করার পর যাবে উচ্চ শিক্ষা দপ্তরে। সেখান থেকে পরীক্ষা করে নেওয়ার পর তা পৌঁছে যাবে ব্যাঙ্কে। পরবর্তীতে ব্যাঙ্ক থেকে তা অ্যাপ্রুভ হয়ে পড়ুয়াকে তার পড়াশোনার জন্য অর্থ প্রদান করা হবে। এই প্রক্রিয়াটি অনলাইনে হবে বলেই জানা যাচ্ছে।

Go to Study Solve Home Page

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

x