Madhyamik History Important Question & Answer in Bengali

Madhyamik History Important Question & Answer in Bengali

 

দুটি অথবা তিনটি বাক্যে উত্তর দাও । প্রত্যেকটি প্রশ্নের মান ২

১ ] সামাজিক ইতিহাস কী ?

উঃ ১৯৬০ এর দশক থেকে এডওয়ার্ড থমসন, এরিক হবসবম প্রমুখ ঐতিহাসিকদের হাত ধরে জন্ম নেয় নতুন সামাজিক ইতিহাস। দরবারি ইতিহাসের পরিবর্তে সাধারন মানুষের প্রাত্যহিক জীবন, সামাজিক-অর্থনৈতিক সম্পর্ক, ধর্ম-সংস্কৃতি।এভাবে সামগ্রিক যাপনের কথা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে সামাজিক ইতিহাস চর্চায়। হ্যারল্ড পার্কিন, রনজিৎ গুহ, পার্থ চ্যাটার্জী প্রমুখরা এই ধারাকে আরাে সমৃদ্ধ করে তােলেন।

২]  ইতিহাসের উপাদানরূপে সংবাদপত্রের গুরুত্ব কী ?

উঃ আধুনিক ইতিহাস রচনায় সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদ, সম্পাদকীয়, চিঠিপত্র, নানাবিষয়ের ওপর প্রকাশিত
লেখাগুলাে ইতিহাস রচনায় বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। অন্যান্য উপাদানের সাথে তুলনা করে সংবাদপত্রে প্রাপ্ত তথ্যাদি প্রাথমিক
উপাদানরূপে বিবেচিত হয়। সমকালীন সমাজ, অর্থনীতি ও রাজনীতির বার্তাবহ সংবাদপত্র ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলন ও
আধুনিক ভারতের গঠনের ইতিহাস রচনায় বিশেষ সহায়ক।

 

 ৩]  বাংলার নারী শিক্ষা বিস্তারে রাজা রাধাকান্ত দেবের ভূমিকা বিশ্লেষণ কর।

উঃ রাজা রাধাকান্ত দেব সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিলেন ভারতে পাশ্চাত্য শিক্ষার বিস্তারে। হিন্দু কলেজ, স্কুল বুক সােসাইটি।
প্রতিষ্ঠায় অন্যতম উদ্যোগী রাজা রাধাকান্ত দেব নারী শিক্ষার বিস্তারের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন। বেথুন।
স্কল, ডাফস্কল গঠনে, নারীদের পাশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিত করে তােলার জন্য অনুপ্রাণিত করতে বিভিন্ন সভা আয়ােজনে।
রাধাকান্ত দেব বিশেষ ভূমিকা নিয়েছিলেন।

 

৪]  ভারতবর্ষীয় ব্রাত্মসমাজ বিভক্ত হল কেন?

উঃ ১৮৬৬ খ্রিস্টাব্দে আদি ও ভারতবর্ষীয় এই দুভাগে ব্রাক্ষ্মসমাজ বিভক্ত হয়েছিল সংস্কারের প্রশ্নে। কেশবচন্দ্র
সেনের খ্রিস্টধর্ম প্রীতি, গুরুবাদের প্রতি আসক্তি, ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে নিজের নাবালিকা কন্যা সুনীতিদেবীর সাথে কোচবিহারের
মহারাজা নৃপেন্দ্রনারায়ণের বিবাহদানের প্রশ্নে ভারতবর্ষীয় ব্ৰায়ুসমাজে কেশবসেনের অনুগামী ছিলেন যারা তাদের মধ্যে
মতবিরােধ দেখা দেয়। ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে বিজয়কৃয় গােস্বামীকে আচার্য করে শিবনাথ শাস্ত্রীর নেতৃত্বে গড়ে ওঠে সাধারণ
ব্রাহ্বসমাজ। অন্যদিকে কেশবচন্দ্রের নেতৃত্বাধীন ভারতবর্ষীয় ব্রাহ্বসমাজ ১৮৮০ খ্রিস্টাব্দে পরিণত হয় নববিধান’ ব্রাম্মসমাজে।

 

৫]  ফরাজি আন্দোলন কি ধর্মীয় পুনর্জাগরণের আন্দোলন ?

উঃ ইসলামের সংস্কার ও পুনরুজ্জীবনের আদর্শ নিয়ে ফরাজি আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল। ফরাজি’ শব্দের অর্থ ইসলামের অবশ্য পালনীয় কর্তব্য। ইসলাম শাস্ত্রে সুপণ্ডিত হাজি শরিয়ত-উল্লাহ ১৮২০ খ্রিঃ কোরান নির্দেশিত পথে ধর্মসংস্কারের
জন্য এই আন্দোলনের সূচনা করেন। আন্দোলনের প্রত্যক্ষ কারন হিন্দু জমিদার কর্তৃক ধর্মীয় কারনে ফরাজিদের উপর অতিরিক্ত ধর্মীয় ‘কর’ বা ‘আবওয়াব’ আদায়। তবে উপযুক্ত নেতৃত্বের অভাব, সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গী এবং দমননীতির কারনে আন্দোলন ব্যর্থ হয়। ফরাজিদের শক্তির উৎস ছিল ধর্মীয় ঐক্য কিন্তু অবধারিতভাবে এটি একটি কৃষক অভ্যুত্থান।

 

৬]  নীলকররা নীলচাষীদের উপর কীভাবে অত্যাচার করত তা সংক্ষেপে আলােচনা কর।

উঃ ১৮৫৯-৬০ খ্রীষ্টাব্দে নীলকর সাহেবদের সীমাতীত অত্যাচারের ও শােষণের প্রতিবাদে কৃষকরা তাদের বিরুদ্ধে

‘বিদ্রোহ ঘােষণা করে। নীলকররা নীলচাষীদের নানাভাবে অত্যাচার করত – নীলকুঠিতে ধরে এনে নীল চাষে
বাধ্য করা হত, প্রহার করা হত, হত্যা করা হত; কৃষকেরা নীলচাষে বাধ্য না হলে তাদের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে
দিত; কৃষকদের স্ত্রী ও নারীদের সম্মানে হাত দিতেও পিছপা হত না।

 

৭]  ঊনিশ শতকের দ্বিতীয়ার্ধকে ‘সভা সমিতির যুগ’ বলা হয় কেন?

উঃ উনবিংশ শতকে ব্রিটিশদের উদ্যোগে ভারতে পাশ্চাত্য শিক্ষার প্রসার ঘটে এবং ভারতবর্ষের মধ্যবিত্ত সম্প্রদায়ের

মানষ শিক্ষিত হওয়ার পাশাপাশি জাতীয়তাবােধে উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। মধ্যবিত্ত সম্প্রদায় উপলব্ধি করে যে
ব্যক্তিগতভাবে বিচ্ছিন্ন আন্দোলনের মাধ্যমে ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে জনমত গঠন করা সম্ভব নয়। এর একমাত্র উপায়
হল ঐক্যবদ্ধ ভাবে আন্দোলন। এই উদ্দেশ্য সেই সময় বাংলা, মাদ্রাজ ও বােম্বেতে অনেক সভা সমিতি গড়ে
ওঠে। এই কারণে ড অনিল শীল উনবিংশ শতকের দ্বিতীয়ার্ধকে ‘সভা সমিতির যুগ বলেছেন।

 

৮]  আনন্দমঠ উপন্যাস কীভাবে জাতীয়তাবাদী ভাবধারাকে উদ্দীপ্ত করেছিল ?

উঃ সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ১৮৮২ খ্রিষ্টাব্দে রচিত ‘আনন্দমঠ উপন্যাসের মাধ্যমে ভারতীয়দের
মধ্যে জাতীয়তাবােধের বিপুল প্রসার ঘটে। আনন্দমঠের সন্তানদের উচ্চারিত বন্দে মাতরম’ সংগীত বিপ্লবীদের
মন্ত্রমুগ্ধ করেছিল। এই উপন্যাসে বঙ্কিমচন্দ্র পরাধীন ভারতমাতার দুর্দশার চিত্র দেশবাসীর সামনে তুলে ধরে
দেশবাসীকে মুক্তি আন্দোলনে আন্দোলিত করেন। সন্ন্যাসী ফকির বিদ্রোহের জ্বলন্ত দলিল স্বরূপ ‘আনন্দমঠ’ দেশপ্রেমের
জোয়ার এনেছিল।

 

৯]  উনিশ শতকে বিজ্ঞান শিক্ষার বিকাশে ‘ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশন ফর দ্য কান্টিভেশন অফ সায়েন্স’ এর
ভূমিকা কী ছিল?

উঃ উনিশ শতকে বিজ্ঞান শিক্ষার বিকাশের জন্য মহেন্দ্রলাল সরকার ১৮৭৬ খ্রীষ্টাব্দে ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশান ফর দ্য কাল্টিভেশন অব সায়েন্স’ প্রতিষ্ঠা করেন। এই বিজ্ঞান কেন্দ্রে সম্পূর্ণ নিজের তত্ত্বাবধানে স্বাধীনভাবে বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে মৌলিক গবেষণার ব্যবস্থা করা হয় ও বিজ্ঞান বিষয়ক বক্তৃতার আয়ােজন করা হয়। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে চাত্রছাত্রীদের বিজ্ঞান চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে তােলা হয়।

 

১০]  ‘বিশ্বভারতী’ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য কী ছিল?

কবিগুরু বরীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯২১ সালে বীরভূম জেলার শান্তিনিকেতনে স্নিগ্ধ পল্লি প্রকৃতির বুকে বিশ্বভারতীর
প্রতিষ্ঠা করেছিল। এই ‘বিশ্বভারতী’ প্রতিষ্ঠার অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল প্রাচীন ভারতীয় আশ্রমিক, শিক্ষাচেতনার সম্মিলন; শিক্ষার্থীর জীবনের পরিপূর্ণ বিকাশ সাধন করা; শিক্ষার সঙ্গে প্রকৃতি ও মানুষের সমন্বয় গড়ে তােলা; আদর্শ শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তােলার মৌলিকনীতিরপ স্বাধীনতা, সৃজনশীলতার বিকাশ।

 

১১]  নিখিল ভারত ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেস কী উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল?

উঃ ১৯৭০ খ্রীষ্টাব্দে লালা লাজপত রায়ের সভাপতিত্বে বােম্বাইতে নিখিল ভারত ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেস প্রতিষ্ঠার
উদ্দেশ্যগুলি হলঃ

(i) বিভিন্ন স্থানে শ্রমিক আন্দোলনের কার্যকলাপকে নিয়ন্ত্রণ করা।

(ii) বিভিন্ন অলে ব্রিটিশ বিরােধী শ্রমিক আন্দোলনকে ছড়িয়ে দেওয়া।

(iii) শ্রমিকদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নতি সাধন করা।

(iv) শ্রমিকদের সমাজতন্ত্রী ভাবধারার সাথে যুক্ত করা।

 

১২]  ‘ওয়ার্কস অ্যান্ড পেজেন্টস পাটি’ কেন প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ?

উঃ ১৯২৫ খ্রিস্টাব্দের ১লা নভেম্বর মাসে ওয়ার্কার্স অ্যান্ড পেজেন্টস পার্টি গড়ে উঠেছিল শ্রমিকদের কাজের সময়সীমা কমানাে, সর্বনিম্ন মজুরির হার নির্ধারণ করা, জমিদারি প্রথার অবসান ঘটানাে এবং পুনরায় নতুনভাবে শ্রমিকদের সংগঠিত করার উদ্দেশ্যে। মুজফফর আহমেদ, কাজি নজরুল ইসলাম প্রমুখের নেতৃত্বে লাগল’ ও  ‘গণবানী’ পত্রিকাকে মুখপত্র করে প্রাথমিকভাবে কংগ্রেসের মধ্য থেকে ও পরবর্তীতে কমিউনিস্ট আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্তভাবে শ্রমিক কৃষকদের স্বার্থরক্ষার উদ্দেশ্যে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

১৩]  রশিদ আলি দিবস কেন পালিত হয়েছিল?

উঃ আজাদ হিন্দ ফৌজের ক্যাপ্টেন রশিদ আলির দিল্লির লালকেল্লায় বিচার শুরু হলে তাকে সাত বছরের সশ্রম
কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে ১৯৪৬ খ্রীষ্টাব্দের ১১ থেকে ১৩ই ফেব্রুয়ারী কলকাতা গণ আন্দোলনে
উত্তাল হয়ে ওঠে। ১১ই ফেব্রুয়ারী ছাত্ররা কলকাতার রাজপথে আন্দোলনে নামে এবং প্রতিবাদ দিবসরূপে ১২ই
ফেব্রুয়ারী দিনটি রশিদ আলি দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

১৪]  দলিত কাদের বলা হয় ?

উঃ ব্যাকরণ অনুযায়ী ‘দলিত’ শব্দটি একটি বিশেষণ, যার অর্থ মাড়িয়ে যাওয়া হয়েছে এমন বা পদদলিত। ১৯৩০-এর
দশক থেকে অস্পৃশ্যরা নিজেদের দলিত বলে পরিচয় দিতে শুরু করে। এরা হল বর্ণ হিন্দু সমাজের মূল স্রোত থেকে
বিচ্ছিন্ন। এরা সমাজের উচ্চ শ্রেণীর মানুষদের কাছে অত্যাচারিত হত। ডঃ বি. আর. আম্বেদকরের নেতৃত্বে দলিত
আন্দোলন বৃহত্তর রূপ নেয়।

১৫]  দেশীয় রাজ্যগুলির ভারতভূক্তি দলিল বলতে কী বােঝায়?

‘ উঃ ভারতের স্বাধীনতা লাভের পর ভারত সরকার দেশীয় রাজ্যগুলির ভবিষ্যৎ নির্ধারনের প্রশ্নে এক বলিষ্ঠনীতি

গ্রহণ করেছিল। ১৯৪৭ খ্রিঃ ২৭ শে জুন সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল অধীনে স্থাপিত হল দেশীয় রাজ্য দপ্তর এবং এর
সচিব হলেন ভি.পি. মেমন। প্যাটেল মাউন্টব্যান্টের পরামর্শে প্রায় সমস্ত দেশীয় রাজ্যগুলিকে বিশাল পরিমাণ ভাতা,
খেতাব ও অন্যান্য সুবিধার প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে ‘Instrument of Acession’ নাম একটি দলিলে স্বাক্ষর করে ভারত
ইউনিয়নে যােগদান করান। এটিই দেশীয় রাজ্যগুলির ভারতভুক্তির দলিল নামে খ্যাত।

১৬]  ১৯৫০ সালে কেন নেহরু-লিয়াকৎ চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিল ?

উঃ ৩.১৬) ১৯৪৭ খ্রীষ্টাব্দের ১৫ই আগষ্ট স্বাধীনতা পর ভারতের কাছে প্রধান সমস্যা ছিল উদাত্ত সমস্যা।
পাকিস্তান থেকে ভারতে বহুশরনার্থী চলে আসে এবং ভারত থেকে পাকিস্তান বহু শরনার্থী চলে যায় । দাঙ্গা বহুল এই
সমস্যার মােকাবিলা করার জন্য ১৯৫০ সালে ৮ই এপ্রিল নেহেরু লিয়াকৎ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এর মাধ্যমে ভারত সরকার
১৯৪৭ থেকে ১৯৫২ খ্রীষ্টাব্দ পর্যন্ত উদ্বাস্তুদের পুনর্বাসনে উদ্যোগী হয়।

এছাড়াও দেখুনঃ

মাধ্যমিক সাজেশন 2020 ইতিহাস(Madhyamik History Suggestion)

মাধ্যমিক ইতিহাস(Madhyamik History): দুই নম্বরের প্রশ্ন ও উত্তর ।

৯০ টি মাধ্যমিক জীবনবিজ্ঞানের অত্যন্ত গুরত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর(90 Very Very Important Question and Answer)

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Study Solve © 2019

   DMCA Policy

 

error: Content is protected !!