Jalpaiguri District(জলপাইগুড়ি জেলা) Important G.K Question and Answer in Bengali

Jalpaiguri District(জলপাইগুড়ি জেলা) Important G.K Question and Answer in Bengali

১। জলপাইগুড়ি  জেলার আয়তন কত বর্গকিমি, ?

উঃ ৬,২২৭ বর্গকিমি.

২।  জলপাইগুড়ি জেলার সীমানা উল্লেখ করাে।

উ;  উত্তরে দাজিলিং ও ভুটান। দক্ষিণে কোচবিহার ও বাংলাদেশ, পূর্বে অসম রাজ্য ও পশ্চিমে দার্জিলিং জেলা।

৩।  জলপাইগুড়ি জেলার জনসংখ্য কত?

উঃ  ৩৫,৯৯,৫৫৬ জন।।

৪।  জলপাইগুড়ি জেলার লােকবসতির ঘনত্ব প্রতি বর্গকিমিতে কত?

উঃ  ৫৪৭ জন।।

৫।  জলপাইগুড়ি জেলার সদর কোনটি ?

উঃ  জলপাইগুড়ি।

৬। জলপাইগুড়ি জেলার মহকুমা ক’টি ও কী কী?

উঃ ৩টি। জলপাইগুড়ি (সদর), আলিপুর দুয়ার ও মালবাজার।

৭।  জলপাইগুড়ি জেলার পুরসভা ক’টি ?

উঃ  ৩টি। জলপাইগুড়ি, মালবাজার ও আলিপুর দুয়ার পৌরসভা।

৮।  জলপাইগুড়ি জেলার গ্রাম-পায়েতের সংখ্যা কটি ?

উঃ  ১৪৮টি।

৯।  জলপাইগুড়ি জেলায় ক’টি থানা ও ক’টি ব্লক আছে?

উঃ ২২টি থানা ও ১৩টি ব্লক আছে।

১০। জলপাইগুড়ি জেলার কোথায় ডলােমাইট খনি রয়েছে?

উঃ বক্সা অঞ্চলে।

১১।  বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় জলপাইগুড়ি জেলাকে কেন্দ্র করে কোন বই লিখেছিলেন ?

উঃ  দেবী চৌধুরানি।

১২। জলপাইগুড়ি জেলার কোন নদীকে ত্রাসের নদী বলে ?

উঃ তিস্তা নদী।।

১৩। জলপাইগুড়ি জেলার প্রাচীন নাম কী?

উঃ  বৈকুণ্ঠপুর।

১৪। জলপাইগুড়ি জেলার কয়েকটি কৃষিজ দ্রব্যের নাম লেখাে।

উঃ ধান, গম, আনারস, কমলালেবু ও পাট।

১৫। জলপাইগুড়ি জেলায় চা উৎপাদনে কোন স্থান অধিকার করে ?

উঃ দ্বিতীয়।

১৬। জলপাইগুড়ি জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত কয়েকটি নদীর নাম লেখাে।

উঃ তিস্তা, তাের্সা, জলঢাকা, রায়ডাক, কালজানি, সঙ্কোশ, মুজনাই, করুণা,

করলা ও নেওড়া।

১৭। জলপাইগুড়ি জেলার দুটি নদী বাঁধ প্রকল্পের নাম লেখাে।

উঃ তিস্তা বাঁধ প্রকল্প ও সঙ্কোশ নদী প্রকল্প।

১৮। জলপাইগুড়ি জেলার কয়েকটি পাহাড়ের নাম লেখাে।

উঃ ভুটান সীমান্তে আছে সিঙ্গুলা পর্বত (১৮,০০০ মি.)। এছাড়া ভুটানের ডুয়ার্স

পর্বতমালার অংশ বিশেষ আছে চেঙ্গমারী, লঙ্কা পাড়হাট ও জয়ন্তী অঞ্চলে।

১৯। জলপাইগুড়ি জেলার কয়েকটি অভয়ারণ্যের নাম লেখাে।।

উঃ জলদাপাড়া অভয়ারণ্য, মূতী বনাঞ্চল ও গরুমারা অভয়রণ্য এবং বক্সদুয়ার -ব্যাঘ্র প্রকল্প।

২০। জলপাইগুড়ি জেলার কয়েকটি দর্শনীয় স্থানের নাম লেখাে।

উঃ জলপেশ্বর মন্দির ও বক্সাপাহাড়ে ব্রিটিশ আমলে তৈরি বন্দিদের দুর্গ।।

২১। কত খ্রিস্টাব্দে জলপাইগুড়ি জেলার জন্ম হয় ?

উঃ  ১৮৬৯ খ্রিস্টাব্দের ১ জানুয়ারি।

২২। তােরসা নদীর উৎপত্তি স্থান কোথায় ?

উঃ  তােরসা নদীর উৎপত্তি তিব্বতের চুম্বি উপত্যকায়।

২৩। জলপাইগুড়ি শহরটিকে কোন্ নদী মাঝামাঝি ভাগ করেছে?

উঃ করলা নদী।

এছাড়া পড়ুনঃ

 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

x