‘e-EPIC’ ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড কি? কীভাবে পাবেন ?

‘e-EPIC’ ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড কি?

জাতীয় ভোটার দিবসের দিন ভারতের নির্বাচন কমিশন ‘e-EPIC’ নামে ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড চালু করেছে। e-EPIC (Elector Photo Identity Card) অথবা ই-ভোটার কার্ড পিডিএফ ফরম্যাটে পাওয়া যাবে। আপনি এটি আপনার মোবাইল থেকে ডাউনলোড করতে পারেন কিন্তু করতে পারবেন না। আপনি এটি ডাউনলোড এবং প্রিন্ট করতে পারেন এবং ল্যামিনেশনও করতে পারেন।

‘e-EPIC’ ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড কি? কীভাবে পাবেন ?

‘e-EPIC’ ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড কি? কীভাবে পাবেন ?

 

e-EPIC কার্ড এর সুবিধাঃ

ভোট দেওয়ার সময় ভোটার কার্ড বহন করতে হবে না। ভোটাররা তার ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ডের সাহায্যে ভোট দিতে পারবেন।

ভোটারকে বারবার ভোটার আইডি কার্ড বানাতে হবে না এবং  বার বার নতুন কার্ড বানানোর আর ঝামেলা পোহাতে হবে না।

ভোটের ঠিকানায় কোন নতুন পরিবর্তন করতে চাইলে অনলাইনে আপডেট করতে পারেন এক্ষেত্রে নতুন কার্ড নেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।

 

তাহলে পুরোনো ভোটার আইডি কার্ডের কী হবে?

 

ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড আসার পরেও ভারতে পুরনো ভোটার আইডি কার্ড বন্ধ করা হবে না। ভোটাররা এখন তাদের পুরনো ভোটার আইডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ডে নেওয়ার একমাত্র সুবিধা হচ্ছে ভোটার আইডি কার্ড বিতরণের অপেক্ষার সময় শেষ হয়ে যাবে।

কী করে e-EPIC কার্ডটি পাবেন?

আপনি যদি আপনার ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে চান, তাহলে আপনাকে নির্বাচন কমিশনের সাথে আপনার মোবাইল নম্বর লিঙ্ক করতে হবে। আপনি যদি এখনও নির্বাচন কমিশনের সাথে আপনার মোবাইল নম্বর লিঙ্ক না করে থাকেন, তাহলে শীঘ্রই তা সম্পন্ন করুন।

যদি আপনার মোবাইল নম্বর নির্বাচন কমিশনের সাথে সংযুক্ত থাকে, তাহলে আপনি ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ থেকে আপনার e-EPIC কার্ডটি ডাউনলোড করতে পারবেন। আপনার নতুন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে, আপনাকে অবশ্যই প্রথমে আপনার KYC প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

এই কার্ডটি  ই-এপিক পোর্টাল(e-EPIC  Website) থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন তার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:

প্রথমত, ভোটার পোর্টাল সাইটে লগ ইন করতে হবে।

এরপর “Download e-EPIC” এ ক্লিক করতে হবে।

আপনার EPIC নম্বর বা ফর্ম রেফারেন্স নম্বর লিখুন।

এখন আপনার রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে একটি ওটিপি প্রদর্শিত হবে।

এখন আপনাকে “Click On Download e-EPIC” এ ক্লিক করতে হবে।

আপনার মোবাইল নম্বর রেজিস্টার না থাকলে কি করবেন?

 

যদি আপনার মোবাইল নম্বর রেজিস্টার্ড না হয়, আপনি আপনার ই-এপিক কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন না এবং এর জন্য আপনাকে KYC- ক্লিক করে আপনার KYC সম্পন্ন করতে হবে। এরপর আপনাকে আপনার “Face Verification” করতে হবে এবং আপনার মোবাইল নম্বর আপডেট করতে হবে।

আপনার KYC হয়ে গেলে আপনি আপনার  e-EPIC কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি দেখতে পারেনঃ

এ পি জে আব্দুল কালামের বিখ্যাত উক্তি/বাণীসমূহ

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

x