Class 9 Model Activity Task Geography Part 6 (September, 2021)

Class 9 Model Activity Task Geography Part 6 (September, 2021):

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক ২০২১

নবম শ্রেণি
ভূগোল ও পরিবেশ

১. বিকল্পসগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখো : 

১.১ অক্ষরেখার অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো__

ক) সর্বোচ্চ অক্ষরেখার মান ০°

খ) প্রতিটি অক্ষরেখা মহাবৃত্ত

গ) অক্ষরেখাগুলি পরস্পরের সমান্তরাল

ঘ) প্রতিটি অক্ষরেখার পরিধি সমান

১.২ বিদার  অগ্ন্যুদগমের মাধ্যমে সৃষ্ট ভূমিরুপ হলো-_

ক) স্তুপপর্বত

খ) লাভা মালভূমি

গ) পর্বতবেষ্টিত মালভূমি

ঘ) আগ্নেয়গিরি

১.৩ ঠিক জোড়াটি নির্বাচন করো-_

ক) দামোদর নদী – পশ্চিমবঙ্গের উত্তরের পার্বত্য অঞ্ল
খ) কালিম্পং জেলা – সমুদ্র থেকে দূরবর্তী স্থান
গ) পডজল মৃত্তিকা – পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিমের মালভূমি অঞ্জল
ঘ) আ্যালপাইন উদ্ভিদ – সুন্দরবন অঞ্ল

 

২. শুন্যস্থান পূরণ করো : 

২-১ দ্রাঘিমারেখাগুলি নিরক্ষরেখাকে ______কোণে ছেদ করেছে।
২.২ আবহবিকারগ্রস্থ শিলা চুর্ণবিচূর্ণ হয়ে মূল শিলার উপর যে শিথিল আবরণ তৈরি করে তাকে___ বলে।
২.৩ দার্জিলিং জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত একটি নিত্যবহ নদী হলো __________।

৩. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :

৩.১ আবহবিকারে প্রাণীদের ভূমিকা উদাহরণসহ ব্যাখ্যা করো।
৩.২ “পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষ সমভূমি অঞ্জলে বসবাস করেন” __ ভৌগোলিক কারণ ব্যাখ্যা করো।

৪. পশ্চিমবঙ্গের জলবায়ু কীভাবে মৌসুমী বায়ু দ্বারা প্রভাবিত হয়?

 

উত্তরপত্র

 

১/ ১) গ) অক্ষরেখা গুলি পরস্পর সমান্তরাল

১। ২) ঘ) আগ্নেয়গিরি

১।৩) খ) কালিম্পং জেলা- সমুদ্র থেকে দূরবর্তী স্থান

 

২/ ১) সমকোণে
২) রেগোলিথ
৩) তিস্তা

 

৩/ ১) আবহবিকারের প্রাণীদের ভূমিকা: আবহবিকারের প্রাণীদের আমরা দুটি পদ্ধতি ভূমিকা আলোচনা করব। যেমন-
ক) যান্ত্রিক পদ্ধতি: ইঁদুর, খরগোশ, খেকশিয়াল, প্রেইরি কুকুর, পেঁচা শিলার মধ্যে গর্ত খুঁড়ে বাসা তৈরি করে। শামুক চুনাপাথরের মধ্যে গর্ত তৈরি করতে পারে।
খ) রাসায়নিক পদ্ধতি: পশুপাখির বর্জ্য পদার্থ শিলা রাসায়নিক আবহবিকার ঘটায়। প্রাণী মারা যাবার পর প্রাণীদেহে থেকেএসিড এর মাধ্যমে শিলা রাসায়নিক আবহবিকার ঘটে। জীবাণু, কীট ও ব্যাকটেরিয়া শিলার মধ্যে রাসায়নিক আবহবিকার ঘটায়।

৩/১) পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষ সমভূমি অঞ্চলে বসবাস করার কারণ গুলি হল-
কৃষি: সমতল ভূমি, উর্বর মাটিরসুবিধার কারণে সমভূমিতে কৃষিকাজ অত্যন্ত উন্নত।
 সভ্যতার বিকাশ: মানুষের প্রধান তিনটি চাহিদা সমভূমিতে বাস করে সবচেয়ে সহজে মেটানো যায় বলে প্রাচীনকালের সভ্যতার বিকাশ নদী অববাহিকা কে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছিল।
উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা: সমভূমিতে সড়ক, রেল ও জলপথ ব্যবস্থার সহজে গড়ে তোলা যায়।
বাণিজ্য ও নগর: ব্যবসা-বাণিজ্যের কেন্দ্রগুলি সমভূমিতে বেশি গড়ে উঠেছে। শহর ও নগর এর সংখ্যা সমভূমিতে বেশি।
 জনসংখ্যা ও জনবসতি: জীবনধারন সমভূমিতে সহজসাধ্য। মানুষ তার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় রসদসমভূমি থেকে সবচেয়ে সহজে ও দ্রুত সংগ্রহ করতে পারে। তাই সমভূমিতে জনসংখ্যার ঘনত্ব সর্বাধিক। পৃথিবীর অধিকাংশ লোক সমভূমিতে বাস করে।

৪/ পশ্চিমবঙ্গের জলবায়ুতে মৌসুমি বায়ুর প্রভাব: পশ্চিমবঙ্গের সকল জলবায়ুগত উপাদান গুলির উপর মৌসুমি বায়ুর প্রভাব ফেলে। যেমন-
ক) ঋতু পরিবর্তনের উপর প্রভাব: মৌসুমী বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমনের উপরে এরাজ্যে ঋতু পরিবর্তন ঘটে এবং আগমন ও প্রত্যাগমন এর উপর ভিত্তি করে বছরটিকে চারটি প্রদানে ঋতুতে ভাগ করা হয়েছে।
খ) বৃষ্টিপাতের উপর প্রভাব: পশ্চিমবঙ্গের মোট বৃষ্টির 90 ভাগ ঘটে বর্ষাকালে মৌসুমী বায়ুর আগমন কালে। মৌসুমী বায়ুর প্রত্যাগমন কালে বাতাসে জলীয় বাষ্প কম থাকে বলে বৃষ্টিহীন।
গ) বায়ুপ্রবাহ: মৌসুমী বায়ুর আগমন কালে বায়ু দক্ষিণের সমুদ্র থেকে উত্তর দিকে বয়ে যায় এবং প্রত্যাগমন কালে স্থল ভাগ থেকে দক্ষিণে সমুদ্রের দিকে বয়।
ঘ) উষ্ণতার প্রভাব: মৌসুমী বায়ুর আগমনের কারণে আকাশ মেঘে ঢেকে যায় এবং বৃষ্টি হয় বলেই উষ্ণতা যা হওয়ার কথা তার থেকে কম হয়। আবার প্রত্যাগমন কালে আকাশ কিছুটা মেঘালয় বলে গড় উষ্ণতা বর্ষাকালের থেকে সামান্য বাড়ে।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

x