Bengali Grammar(বাংলা ব্যাকরণ)| বাক্যসংকোচন বা একথায় প্রকাশ করো

Bengali Grammar(বাংলা ব্যাকরণ)| বাক্যসংকোচন বা একথায় প্রকাশ করো

বাক্যসংকোচন বা একথায় প্রকাশ করো

 

মনের কোনাে ভাবকে একাধিক পদে প্রকাশ না করে প্রয়ােজন মতাে একটি শব্দে প্রকাশ করা যায়। একাধিক পদকে একটি শব্দে প্রকাশ করার নাম বাক্যাংশ সংকোচন। কৃৎ প্রত্যয় তদ্ধিত প্রত্যয় এবং সমাসের সাহায্যে বাক্য সংকোচন করা হয়। নীচে এই ধরনের কিছু সংকোচনের উদাহরণ দেওয়া হল।

 

যা দেখা যায় না – অদৃশ্য।

যা বলা হয়েয়ে – উক্ত।

যেখানে যাওয়া যায় না – অগম্য।

যা পােড়ে না – অদাহ্য।

যা সাধন করা যায় না – অসাধ্য।

যা অতিক্রম করা যায় না – অনতিক্ৰমণীয়।

যিনি আগে জন্মগ্রহণ করেছেন – অগ্রজ।

যার অন্তিমকাল উপস্থিত – মুমূর্ষ।

যা আগে কোনােদিন শােনা যায়নি – অশ্রুতপূর্ব।

যা বাক্যে প্রকাশ করা যায় না – অনির্বচনীয়।

যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে না – কৃতঘ্ন।

অনুসন্ধান করবার ইচ্ছা — অনুসন্ধিৎসা।

হত্যা করার ইচ্ছা – জিঘাংসা।

যার ভিতরে সার বস্তু কিছুই নেই – অন্তঃসারশূন্য।

যে পুরুষ বিয়ে করেনি – অকৃতদার।।

যা অবশ্যই হবে — অবশ্যম্ভাবী।

যা বলা যায় না – অকথ্য।

যা চিবিয়ে খেতে হয় – লেহ্য।

যা পান করা হয় – পেয়।

পা থেকে মাথা পর্যন্ত – আপাদমস্তক।

যা সহজেই ভেঙে যায় – ভঙ্গুর

যা দিনে দিনে বাড়ে – বর্ধিষ্ণু।

যে নারীর পতিও নেই ছেলেও নেই – অবীরা।

অনুকরণ করবার ইচ্ছা — অনুচিকীর্ষা।

যিনি ব্যাকরণ জানেন -বৈয়াকরণ।

যিনি নিজেকে পণ্ডিত মনে করেন – পণ্ডিতম্মন্য।

যে নারী কখনও সূর্যের মুখ দেখেনি – অসূর্যম্পশ্যা।

যার মৃত্যু নেই – অমর।

দিনের শেষ ভাগ – অপরাহ্ন।

হরিণের চামড়া – অজিন।

যা চিন্তা করা যায় না – অচিন্তনীয়।

যা কল্পনা করা যায় না – অকল্পনীয়।

যার এখনাে দাড়ি গোফ গজায়নি – অজাতশ্মশ্রু।

যে শত্রুকে দমন করেছে – অরিন্দম।।

যিনি প্রবাসে থাকেন – প্রবাসী।

যা উড়ে যাচ্ছে – উড়ন্ত।

সমুদ্র থেকে হিমাচল পর্যন্ত — আসমুদ্রহিমাচল।

ঈশ্বরে যার বিশ্বাস আছে – আস্তিক।

ইন্দ্রকে যিনি জয় করেছেন – ইন্দ্রজিৎ।

জল ও স্থল উভয় জায়গায় যে চলে – উভচর।

যা মাটি ভেদ করে উপরে উঠে – উদ্ভিদ।

এক থেকে আরম্ভ করে – একাদিক্রমে।

যিনি দিনে একবার আহার করেন – একাহারী।।

যিনি ইতিহাস লেখেন – ঐতিহাসিক।

যে ফল পাকালেই গাছ মরে যায় – ওষধি।।

জানবার ইচ্ছা – জিজ্ঞাসা।

যারা ঝগড়া করছে – বিবদমান।

যা বার বার দুলছে – দোদুল্যমান।

যার স্ত্রী মারা গেছেন – বিপত্নীক।

যার কাজ করবার ক্ষমতা নেই – অকর্মণ্য।

পাখির কলরব – কাকলি।।

ময়ূরের ডাক – কেকা।

যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে – কৃতজ্ঞ।

কী করবে, কী না করবে বুঝতে না পারা – কিংকর্তব্যবিমূঢ়।

সবার চেয়ে বয়সে ছােটো – কনিষ্ঠ।

দিনের আলাে ও রাত্রির অন্ধকারের সন্ধিক্ষণ – গােধূলি।।

যা যুক্তিসংগত নয় – অযৌক্তিক।

যিনি একবার মাত্র সন্তান প্রসব করেছেন – কাকবন্ধ্যা।

যা কোনাে কাজের নয় – অকেজো।

বনে থাকে যে – বন্য।

রেশম দিয়ে তৈরি – রেশমি।

যিনি দর্শন শাস্ত্র জানেন – দার্শনিক।।

যা অল্প সময়েই ভেঙে যায় ~ ক্ষণভঙ্গুর।

শুভক্ষণে যাঁর জন্ম – ক্ষণজন্ম।

চিরকাল মনে রাখবার যােগ্য – চিরস্মরণীয়।।

যা চিরকাল মনে রাখবার যােগ্য – চিরন্তন।

যিনি ইন্দ্রিয়কে জয় করেছেন – জিতেন্দ্রিয়।

যার আগের জন্মের কথা স্মরণ আছে – জাতিস্মর।

বীণার ধ্বনি – ঝংকার।

ধনুকের শব্দ – টংকার।

পুরুষের উদ্দাম নৃত্য – তাণ্ডব।

যিনি তির নিক্ষেপে ওস্তাদ – তিরন্দাজ।

যিনি শ্রদ্ধার যােগ্য – শ্রদ্ধেয়।।

যা সহজে সাধন করা যায় না – দুঃসাধ্য।

দূরের ঘটনাও যিনি দেখতে পান – দূরদর্শী।

যাঁর দেশের প্রতি প্রীতি আছে – দেশপ্রেমিক।

যা ভস্ম করা হয়েছে – ভস্মীভূত।।

যিনি দুবার জন্ম নিয়েছেন – দ্বিজ।।

যা একটি ধারা ধরে চলে – ধারাবাহিক।

যার জন্য কর দিতে হয় না – নিষ্কর।

যার এখনাে বালকত্ব কাটেনি নাবালক।

নৌ চলাচলের যােগ্য নাব্য।

যিনি বিজ্ঞান শাস্ত্র জানেন – বিজ্ঞানী।

যে নারীর উপমা নেই – নিরুপমা।

যা খুব দীর্ঘ নয় – নাতিদীর্ঘ।

যা খুব গরমও নয় ঠান্ডাও নয় – নাতিশীতােষ্ণ।

যিনি আমিষ খান না – নিরামিষাশী।

পূজা পাবার যােগ্য – পূজ্য।

যার উপস্থিত বুদ্ধি আছে – প্রত্যুৎপন্নমতি।

যে গাছ অন্য গাছের উপর নির্ভর করে – পরগাছা।

যে পালিয়ে যাচ্ছে – পলায়মান।

যে নারী প্রিয় কথা বলে – প্রিয়ংবদা।।

যে নারীর স্বামী বিদেশে থাকে – প্রােষিতভর্তৃকা।

যার স্ত্রী বিদেশে থাকেন – প্রােষিতভার্য।

যে লাফিয়ে লাফিয়ে চলে – প্লবগ।

পথ চলার খরচ – পাথেয়।

যারা বিষ্ণুর উপাসক – বৈষ্ণব।।

ভগীরথের আনীত নদী — ভাগীরথী।

যে মধু পান করে – মধুপ।

মূর্ধা যার উচ্চারণ স্থান – মূর্ধন্য।।

যিনি যুদ্ধে স্থির থাকেন – যুধিষ্ঠির।

যার একবার শুনলেই মনে থাকে – শ্রুতিধর।

যিনি শুভ কামনা করেন – শুভাকাঙক্ষী।

একই গুরুর শিষ্য – সতীর্থ।

যার দুই হাত সমান ভাবে চলে – সব্যসাচী।

সত্ত্বগুণ আছে যার – সাত্ত্বিক।

একই সময়কার – সমসাময়িক।

যার সব কিছুই হারিয়ে গেছে – হৃতসর্বস্ব।

যা হৃদয়ে গমন করে – হৃদয়ংগম।

নিজেকে হীন মনে করার ভাব – হীনমন্যতা।

শাস্ত্র সম্বন্ধীয় – শাস্ত্রীয়।

যা পরিশ্রমের দ্বারা করতে হয় – শ্রমসাধ্য।

জয় করিবার ইচ্ছা – জিগীষা।।

যার কুল শীল জানা নেই – অজ্ঞাতকুলশীল।

অন্য ভাষায় রূপান্তরিত – ভাষান্তরিত।

যে দুজন একই সঙ্গে জন্মগ্রহণ করছে – যমজ।

যা অবশ্যই ঘটবে – অবশ্যম্ভাবী।

যে পরের মুখ চেয়ে থাকে – পরমুখাপেক্ষী।

যারা পট আঁকেন – পটুয়া।

আকাশে বিহার করে যে – বিহঙ্গ।

যে আদব কায়দা জানে না – বেআদব।

যিনি আয় বুঝে ব্যয় করেন – মিতব্যয়ী।

যা মর্ম ভেদ করে – মর্মভেদী।

যতদিন জীবন থাকবে – যাবজ্জীবন।

যারা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় গমন করে— যাযাবার।

যিনি শত্রুকে বধ করেন – শত্রুঘ্ন।

যে পুরুষ স্ত্রীর বশীভূত – স্ত্রৈণ।।

যার সব কিছুই চলে গেছে – সর্বস্বান্ত।

যে নারীর হাসি সুন্দর – শুচিস্মিতা।

যিনি সব কিছুই সহ্য করেন – সর্বংসহ।।

একই মায়ের গর্ভজাত – সহােদর।।

যা হৃদয়কে বিদীর্ণ করে – হৃদয় বিদারক।

যা হৃদয়কে আকর্ষণ করে – হৃদয়গ্রাহী।

যার উপাস্য দেবতা বুদ্ধ – বৌদ্ধ।।

যা অনায়াসে লাভ করা যায় – অনায়াসলভ্য।

যা আগে ছিল এখন নেই – ভূতপূর্ব।

অন্যান্য পোষ্টগুলিঃ

বাংলা ব্যাকরণ(Bengali Grammar) প্রশ্ন ও উত্তর | পদ প্রকরণ

সম্পূর্ণ বাংলা ব্যাকরণ বই PDF ডাউনলোড করুন

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

x